ঢাকার কোথায় কীভাবে যানবাহনে হয় চাঁদাবাজি

Uncategorized

রাত তিনটার দিকে কাঁচামাল নিয়ে গুলিস্তান থেকে পুরান ঢাকার শ্যামবাজারের আড়তে যাচ্ছিলেন লিটন ব্যাপারী। পিকআপ ভ্যান চালিয়ে তিনি যখন সুরিটোলা মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে পৌঁছান, তখন কয়েকজন লাঠি হাতে গাড়ির সামনে দাঁড়ান। তাঁরা লিটন ব্যাপারীর কাছ থেকে জোর করে ৫০০ টাকা চাঁদা আদায় করেন।

এই ঘটনা গত ১৬ মার্চের। ওই দিন কেবল লিটনের কাছ থেকে নয়, চাঁদাবাজরা অন্যান্য গাড়ির চালকদের কাছ থেকেও ৫০০ টাকা আদায় করতে থাকেন। একপর্যায়ে চালকেরা চিৎকার শুরু করেন। পরে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে পাঁচজন চাঁদাবাজকে গ্রেপ্তার করে।

বংশাল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মইনুল ইসলাম বলেন, এ ঘটনায় চালক লিটন ব্যাপারী বাদী হয়ে বংশাল থানায় চাঁদাবাজির মামলা করেছেন।

কেবল পুরান ঢাকা নয়, গত ফেব্রুয়ারি ও মার্চে রাজধানীর যাত্রাবাড়ী, কোতোয়ালি, মোহাম্মদপুর, তেজগাঁও, সূত্রাপুর, বাড্ডা, দারুস সালাম, নিউমার্কেট থানায় চাঁদাবাজির ঘটনায় অন্তত ১৪টি মামলা হয়েছে। অন্তত ৫৮ জনকে গ্রেপ্তার করেছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা।

মামলার কাগজপত্র ও সংশ্লিষ্ট পুলিশ কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেল, যাত্রাবাড়ীর দোলাইরপাড়, কোতোয়ালির বাবুবাজার ও বাদামতলী, কারওয়ান বাজার, মোহাম্মদপুরের বছিলা, বাড্ডার সাঁতারকুল মোড়, সূত্রাপুরের বাংলাবাজার, নিউমার্কেটের গাউছিয়া মার্কেট, দারুস সালামের মাজার রোডে চাঁদাবাজির ঘটনা ঘটেছে। চাঁদাবাজির কাজে ব্যবহার করা অনেক লাঠি জব্দ করেছে পুলিশ ও র‍্যাব।কোতোয়ালি থানার ওসি মো. মাহফুজুর রহমান প্রথম আলোকে বলেন, গত ফেব্রুয়ারি ও মার্চে চাঁদাবাজির একাধিক মামলা করেছে পুলিশ।

ঢাকা মহানগর পুলিশের গণমাধ্যম ও জনসংযোগ বিভাগের অতিরিক্ত উপকমিশনার কে এন রায় নিয়তি প্রথম আলোকে বলেন, চাঁদাবাজিসহ যেকোনো ধরনের ফৌজদারি অপরাধ সংঘটিত হওয়ার খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে পুলিশ অপরাধীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়। সম্প্রতি চাঁদাবাজিসহ অন্যান্য অপরাধে জড়িতদের গ্রেপ্তার করে বিচারের মুখোমুখি করা হয়েছে। চাঁদাবাজির মামলা তদন্ত করে আদালতে প্রতিবেদনে জমা দেওয়া হবে।

ভয় দেখিয়ে চাঁদা আদায়

বাবুবাজার সেতুর নিচে ১৬ মার্চ বিকেল ৪টা ৫৫ মিনিটের দিকে কাভার্ড ভ্যান, পিকআপ, সিএনজিচালিত অটোরিকশার কয়েকজন চালককে হুমকি দিয়ে চাঁদা আদায় করছিলেন। পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে কয়েকজন চাঁদাবাজ পালিয়ে যান। পুলিশ তিনজনকে গ্রেপ্তার করে। এ ঘটনায় চাঁদাবাজির মামলা করেন কোতোয়ালি থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মোহাম্মদ মোজাম্মল হোসেন।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী স্থানীয় দোকানদার জসীম উদ্দিন প্রথম আলোকে বলেন, অনেক দিন ধরে বাবুবাজার এলাকায় চাঁদা আদায় করেন কয়েকজন ব্যক্তি। চাঁদা না দিলে চালকদের মারধর করার ভয় দেখান তাঁরা।

এ ছাড়া কোতোয়ালির বাদামতলী এলাকায় চাঁদাবাজির অভিযোগে তিনজনের বিরুদ্ধে ১৬ মার্চ আরেকটি মামলা করেছে পুলিশ। বাদামতলীতে কাভার্ড ভ্যানসহ বিভিন্ন যানবাহন থেকে চাঁদা আদায়ের সময় সাইফুল ইসলামসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। কোতোয়ালি থানার এসআই ওবায়দুর রহমান এ তথ্য জানান।

৩০ মার্চ দুপুরে বাংলাবাজারের ব্যাপ্টিস্ট চার্চের সামনে পরিবহন থেকে চাঁদা আদায়ের অভিযোগে মেহেদী হাসান নামের একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে আসামি স্বীকার করেন, দীর্ঘদিন ধরে তাঁরা সূত্রাপুর থানার আশপাশের এলাকায় যানবাহন থেকে চাঁদা আদায় করেন। এ ঘটনায় মামলা করেছে পুলিশ।

দোলাইরপাড়ে দীর্ঘদিন ধরে চাঁদা আদায়

দোলাইরপাড়ে ৭ এপ্রিল বিকেলে ট্রাক, কাভার্ড ভ্যানসহ বিভিন্ন ধরনের যানবাহন থেকে চাঁদা আদায় করার সময় সাইফুল ও আমির সিকদার নামের দুজনকে আটক করা হয়। ওই দিন তাঁদের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির মামলা করে র‍্যাব-১০।

দোলাইরপাড়ের স্থানীয় চা-দোকানি মো. রমজান দেওয়ান প্রথম আলোকে বলেন, দোলাইরপাড় মোড়ে অনেক দিন থেকে দুষ্কৃতকারীরা চাঁদা আদায় করে। র‍্যাব-পুলিশ অভিযান চালানোর পর কিছুদিন চাঁদাবাজদের দৌরাত্ম্য কমে যায়। কিছুদিন পার হলে আবার তাদের দৌরাত্ম্য বেড়ে যায়।

গত ২০ ফেব্রুয়ারি রাত সাড়ে ৯টার দিকে দোলাইরপাড়ের নিরাপদ ট্রান্সপোর্ট অ্যান্ড পার্সেল সার্ভিসের সামনে আন্তজেলা ট্রাক, কাভার্ড ভ্যান, লরিচালকদের কাছ থেকে চাঁদা আদায়ের সময় ১০ জনকে আটক করে র‍্যাব। বনফুলের সামনে বেলা ৩টার দিকে যানবাহন থেকে চাঁদা আদায়ের সময়ও ১০ জনকে আটক করা হয়। এসব ঘটনায় যাত্রাবাড়ী থানায় পৃথক দুটি মামলা করেছে র‍্যাব-১০।

গুলিস্তান, বছিলা ও কারওয়ান বাজারে চাঁদাবাজি

গুলিস্তানের ফুটপাতের দোকানদারদের কাছ থেকে চাঁদা আদায়ের অভিযোগে গত ৩০ মার্চ পাঁচজনের নামে চাঁদাবাজির মামলা করেন সালাউদ্দিন নামের এক ব্যক্তি। মামলায় তিনি উল্লেখ করেন, আসামি সুলতান উদ্দিনসহ দুষ্কৃতকারীরা গুলিস্তানের ফুটপাত থেকে চাঁদা আদায় করে আসছেন। চাঁদা দিতে অস্বীকৃতি জানালে মারধরের হুমকি দেওয়া হয়। এ মামলায় পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

এ ছাড়া কারওয়ান বাজারের দোকানদারদের কাছ থেকে চাঁদা আদায়ের অভিযোগে ২২ মার্চ দুজনের বিরুদ্ধে তেজগাঁও থানায় মামলা হয়েছে। এ মামলায় দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

এর বাইরে ২২ মার্চ মোহাম্মদপুরের বছিলা চৌরাস্তায় যানবাহন থেকে চাঁদা আদায়ের অভিযোগে চারজনের বিরুদ্ধে মামলা করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় চারজনকে গ্রেপ্তার করে আদালতে পাঠিয়েছে পুলিশ।

বাড্ডা, নিউমার্কেট ও দারুস সালামে চাঁদাবাজি

মাজার রোডে ট্রাকচালকদের কাছ থেকে ২০০ থেকে ৩০০ টাকা চাঁদা আদায় করতেন তাঁরা। এ ঘটনায় গত ১ এপ্রিল দুজনের নাম উল্লেখ করে চাঁদাবাজির মামলা করেন দারুস সালাম থানার এসআই মোহাম্মদ মনির হোসেন।

এ ছাড়া নিউমার্কেট থানাধীন মিরপুর সড়কের হকার্স মার্কেটের সামনে দোকানিদের কাছ থেকে চাঁদা আদায়ের অভিযোগে ২৬ মার্চ চারজনের বিরুদ্ধে মামলা করে পুলিশ।
বাড্ডার সাঁতারকুল এলাকায় হকারদের কাছ থেকে চাঁদা আদায়ের অভিযোগে সাতজনের বিরুদ্ধে ২৬ মার্চ পুলিশ মামলা করে।

কেবল মাঠপর্যায়ের চাঁদাবাজদের গ্রেপ্তার করে চাঁদাবাজি নির্মূল করা যাবে না বলে মনে করেন ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের নির্বাহী পরিচালক ইফতেখারুজ্জামান। তিনি প্রথম আলোকে বলেন, ‘একটি সংঘবদ্ধ চক্র দিনের পর দিন রাজধানীতে প্রকাশ্যে চাঁদাবাজিতে জড়িত। সরকারের সর্বোচ্চ পর্যায়ের সিদ্ধান্ত নিয়ে চাঁদাবাজির সব স্তরের ব্যক্তিদের গ্রেপ্তার করে বিচারের মুখোমুখি করলে চাঁদাবাজি কমবে; রাজনৈতিক সদিচ্ছা থাকলেই কেবল সেটি সম্ভব।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *