রাশিয়াকে আটকাতে যা বললেন জেলেনস্কি

বিশ্ব

ইউক্রেন যুদ্ধে রাশিয়াকে আটকাতে আরও অস্ত্রের প্রয়োজন। বৃহস্পতিবার (৯ মে) এ কথা বলেন দেশটির প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি। ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স এ খবর জানিয়েছে।

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি বলেন, রুশ বাহিনীর অগ্রসর থামানো যাবে যদি বন্ধু রাষ্ট্রগুলো অস্ত্রের সরবরাহ বাড়ায়। ইউরোপীয় পার্লামেন্টের সফররত প্রেসিডেন্ট রবার্টা মেটসোলার সঙ্গে যৌথ সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন তিনি।

রাজধানীর কেন্দ্রে একটি উন্মুক্ত সংবাদ সম্মেলনে জেলেনস্কি বলেছিলেন, অস্ত্র সরবরাহ বাড়ানোর জন্য আমাদের অংশীদারদের ওপর সর্বোচ্চ চাপ দিচ্ছি।

তিনি বলেন, অস্ত্র সরবরাহ বাড়ানো হলে, আমরা পূর্বে (রুশ বাহিনী) ঠেকাতে পারব।

কথা বলার সময় বিমান হামলার সাইরেন বেজে উঠে। এটি রুশ ক্ষেপণাস্ত্র ও ড্রোন হামলার হুমকির পূর্বাভাস। যা সারা দেশে তীব্র হয়েছে। এর ফলে, কয়েক হাজার বেসামরিক মানুষ বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছেন।

এপ্রিলের শেষের দিকে তিনটি গ্রাম থেকে সেনা প্রত্যাহার করে নিয়েছে ইউক্রেনীয় বাহিনী। এই পরিস্থিতিতে ইউক্রেনের শীর্ষ কমান্ডার বলেছেন, সামনে পরিস্থিতি আরও খারাপ হতে যাচ্ছে।

এদিকে, গত মাসে সামরিক সহায়তা বিল অনুমোদনের মার্কিন সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছে ইউক্রেন। কিন্তু অনেক ইউনিট এখনও নতুন অস্ত্র পায়নি। বরং সতর্ক করে বলেছে, যা আছে তাও শেষ হয়ে যাচ্ছে।

ইউক্রেনের আরও সেনার প্রয়োজনীয়তা স্বীকার করে জেলেনস্কি বলেন, বাহিনীর অভাবে রুশ দখলকৃত শহর আভদিভকা ও পোকরভস্কে কঠিন পরিস্থিতি তৈরি করছে। যা এখনও ইউক্রেনের দখলে রয়েছে।

জেলেনস্কি বলেছিলেন, রুশ বাহিনীকে আটকাতে হলে অতিরিক্ত ব্রিগেডকে সজ্জিত করতে হবে।

জেলেনস্কি আরও বলেন, ড্রোন ও আর্টিলারি শেল উৎপাদন ইউক্রেনকে রুশ আক্রমণের বিরুদ্ধে লড়াই করতে সহায়তা করেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *