রেলের ভাড়া বাড়ছে না, শুধু ভর্তুকি প্রত্যাহার হচ্ছে: রেলমন্ত্রী

বাংলাদেশ

ট্রেনে ১০০ কিলোমিটারের বেশি দূরত্বের যাত্রায় সরকারের দেওয়া ভর্তুকি প্রত্যাহার করে নেওয়া হচ্ছে। তবে রেলের ভাড়া বাড়ছে না বলে মন্তব্য করেছেন রেলমন্ত্রী মো. জিল্লুল হাকিম। আজ মঙ্গলবার সন্ধ্যায় রাজবাড়ীতে মাসব্যাপী শিল্প ও বাণিজ্য মেলা-২০২৪-এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।

রেলমন্ত্রী জিল্লুল হাকিম বলেন, ‘আমরা বলেছিলাম, যাত্রীদের আমরা যে ভর্তুকি দিয়ে থাকি, সেটি ঈদের আগে প্রত্যাহার করা হবে না। আমরা কথা রেখেছি। ঈদের পরে আমরা এই ভর্তুকি প্রত্যাহার করছি। আগামী ৪ মে থেকে কার্যকর হবে। মূলকথা, ভাড়া বৃদ্ধি হচ্ছে না। যেমন ১০০ কিলোমিটারের মধ্যে কোনো ভাড়া বাড়ছে না। আমরা দূরত্বের ওপরে যে ভর্তুকি দিতাম, এইটা আমরা প্রত্যাহার করছি।’

মন্ত্রী বলেন, ‘এটা ভাড়া বৃদ্ধি না। আর ১৫ থেকে ২০ বছরের মধ্যে রেলের কোনো ভাড়া বৃদ্ধি পায়নি। সবকিছুর দাম বেড়েছে। বাসভাড়া বেড়েছে। আমরা রেলের ভাড়া বৃদ্ধির চেষ্টাও করছি না। তবে রেলের ভাড়া বৃদ্ধি করা উচিত। আমাদের প্রধানমন্ত্রী পরিষ্কার অর্থে বলছেন, এই মুহূর্তে জনগণের ওপরে কোনো চাপ দেওয়া যাবে না। আমরা সেই কারণে শুধু ভর্তুকিটা প্রত্যাহার করছি। ভর্তুকি প্রত্যাহারের জন্য যতটুকু বাড়বে, সেটিও ১০০ কিলোমিটার পর থেকে। এটা সবাইকেই মেনে নিতে হবে।’

রাজবাড়ীতে দেশে রেলের সবচেয়ে বড় ওয়ার্কশপ হচ্ছে জানিয়ে জিল্লুল হাকিম বলেন, ‘এখানে প্রায় ৫ হাজার মানুষের কর্মসংস্থান হবে। রাজবাড়ীতে রেলের একটি ডিভিশন হবে। ফরিদপুরের ভাঙ্গা থেকে বরিশাল পর্যন্ত নতুন রেললাইন স্থাপন করা হবে। এতে প্রায় আটটি জেলা রেলের আওতায় আসবে।’

javascript:false

javascript:false

শিল্প ও বাণিজ্য মেলা সম্পর্কে মন্ত্রী বলেন, ‘শিল্প মেলায় রাজবাড়ীর বিভিন্ন পণ্যসামগ্রী পাওয়া যাবে। জেলার ক্ষুদ্র ও কুঠির শিল্প কারখানায় উৎপাদিত পণ্য সারা দেশে ছড়িয়ে পড়বে বলে আশা করছি। মেলায় কেউ বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির চেষ্টা করবেন না। অন্যথায় তার জন্য তিনিই দায়ী থাকবেন। সবাই সহযোগিতা করবেন।’

রাজবাড়ী চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি আয়োজিত এ মেলার উদ্বোধন করেন রাজবাড়ী-১ (সদর-গোয়ালন্দ) আসনের সংসদ সদস্য কাজী কেরামত আলী। শহরের শহীদ খুশি রেলওয়ে মাঠে আয়োজিত মেলায় সভাপতিত্ব করেন রাজবাড়ী চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি কাজী ইরাদত আলী। অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি ছিলেন জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এ কে এম শফিকুল মোরশেদ, পুলিশ সুপার জি এম আবুল কালাম আজাদ, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সিদ্ধান্ত ভৌমিক, রাজবাড়ী পৌরসভার মেয়র আলমগীর শেখ প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *